বদলে যাচ্ছে আগামী দিনের চকলেট

source_logo
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on whatsapp

এমনকি চকলেটকে আরও সহজলভ্য ও সুলভ করতে কোকো বাটারের বদলে একেবারে বিশুদ্ধ নারকেল তেল ব্যবহার করে চকলেট তৈরি হচ্ছে।

চকলেটের সঙ্গে সব দেশের খাদ্য সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটছে এখন ফিউশনধর্মী চকলেটজাত সব অভিনব খাদ্যসামগ্রীর মাধ্যমে। এই ধারাবাহিকতায় আমরা তুরকিস্তানে চকলেট বাকলাভা, আরবে চকলেট কাতায়েফ, জাপানে চকলেট মোচি, ভারতে চকলেট পান, চকলেট হালুয়া, এমনকি আমাদের দেশে চকলেট পাটিসাপটা বানাচ্ছি মনের মাধুরি মিশিয়ে।

আহা, এ প্রসঙ্গে মনে পড়ছে পশ্চিমবঙ্গের ‘মাছের ঝোল’ সিনেমার কথা। যেখানে বিখ্যাত বাঙালি শেফ অসুস্থ মাকে খাওয়াচ্ছেন চকলেট দিয়ে রান্না মাছের ঝোল, যা তিনি দারুণ সৃজনশীলতায় রেঁধে এবং তা খাইয়ে বিদেশিদের স্বাদকোরকে রসনার রায়ট বাধিয়ে দিয়েছেন। দেখা না থাকলে এই উপলক্ষে ছবিটা একবার দেখেও নেওয়া যেতে পারে বৈকি।

যাহোক ফেরা যাক প্রসঙ্গে, আজকাল গণহারে উৎপাদিত চকলেট বারের চেয়ে হাতে বানানো, ক্রেতার ফরমাশ অনুযায়ী কাস্টোমাইজড চকলেটের চাহিদা বেড়ে চলেছে বিশ্বব্যাপী, এমনকি বাংলাদেশেও।

Explore More Districts