চট্টগ্রামে ১ লাখ ৮৩ হাজার দুস্থ পরিবার পাবে চাল | দৈনিক আজাদী

source_logo
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on whatsapp




পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে চট্টগ্রামের ১৫ উপজেলার ১ লাখ ৮৩ হাজার অতি দরিদ্র ও দুস্থ পরিবারের জন্য ১৮শ ৩০ মেট্রিক টন ভিজিএফের (ভালনারেবল গ্রুপ ফিডিং) চাল বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। প্রত্যেক গরিব ও দুস্থ পরিবার ঈদের আগে বিনামূল্যে ১০ কেজি করে চাল পাবে। আগামী সপ্তাহে ভিজিএফ কর্মসূচির এসব চাল বিতরণ করা হবে বলে জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার দপ্তর থেকে জানা গেছে। সাম্প্রতিক বন্যাক্রান্ত ও অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত দুস্থদের ভিজিএফ প্রদানের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে বলা হয়েছে।
প্রত্যেক ঈদে সরকার গ্রামীণ জনপদের গরিব ও দুস্থ পরিবারের জন্য ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে বিনামূল্যে চাল এবং নগদ টাকা বিতরণের উদ্যোগ নেয়। গত ঈদুল ফিতরেও ভিজিএফ কার্ডে চাল বিতরণ করা হয়েছে। একই সাথে নগরে ৫শ টাকা করে বিতরণ করা হয়। এবারও প্রত্যেক ইউনিয়নে আড়াই লাখ এবং পৌরসভায় ৫ থেকে ৮ লাখ টাকা করে বিতরণ করা হবে। প্রত্যেককে ৫শ টাকা করে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। চট্টগ্রামে ১৯২টি ইউনিয়ন এবং ১৫টি পৌরসভা এলাকায় এসব ভিজিএফ চাল বিতরণ করা হবে। পৌরসভাগুলো হলো পটিয়া, চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, বাঁশখালী, বোয়ালখালী, দোহাজারী, সন্দ্বীপ, সীতাকুণ্ড, মীরসরাই, বারইয়ারহাট, হাটহাজারী, রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, ফটিকছড়ি ও নাজিরহাট পৌরসভা। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা সজীব চক্রবর্তী আজাদীকে বলেন, ঈদুল আজহার আগে ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় চট্টগ্রামের প্রত্যেক ইউনিয়ন ও পৌরসভার অতি দরিদ্র এবং দুস্থ ১ লাখ ৮৩ হাজার পরিবার ভিজিএফের ১০ কেজি করে চাল পাবেন। ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে এসব চাল বিতরণ করা হবে। চাল বিতরণের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার দুস্থদের তালিকা তৈরি করবে। এই তালিকা উপজেলা কমিটিতে অনুমোদনের জন্য পাঠাবে। উপজেলা কমিটি অনুমোদন করার পর ইউনিয়ন পর্যায়ে চাল বিতরণ কার্যক্রম শুরু হবে।
জানা গেছে, বর্তমান সরকার ঈদুল আজহা উপলক্ষে ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় সারা দেশে ৬৪ জেলার ৪৯২টি উপজেলার জন্য ৮৭ লাখ ৭৯ হাজার ২০৩টি এবং ৩২৮টি পৌরসভার জন্য ১২ লাখ ৩৮ হাজার ৪৪৮টিসহ মোট ১ কোটি ১৭ হাজার ৫৫১টি কার্ডের বিপরীতে ১০ কেজি হারে ১ লাখ ১৭৬ দশমিক ৫১ টন চাল বরাদ্দ দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকগণ ভিজিএফ বরাদ্দের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট এলাকার সংসদ সদস্যকে অবহিত করবেন। বরাদ্দপত্রে বলা হয়েছে, ভিজিএফ উপকারভোগী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আদমশুমারি-২০১১ এর জনসংখ্যা অনুযায়ী ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডভিত্তিক বরাদ্দ করা ভিজিএফ কার্ড সংখ্যা পুনঃবিভাজন করে তালিকা প্রস্তুত করতে হবে।

Explore More Districts