এন্ড্রু কিশোরের চলে যাওয়ার এক বছর

source_logo
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on whatsapp

আজ মঙ্গলবার (৬ জুলাই) দেশের কিংবদন্তী কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। গেল বছরের এই দিনে সঙ্গীতাঙ্গনে এক রকম শূন্যতা দিয়ে চলে গেছেন এই শিল্পী। তবে তাঁর গেয়ে যাওয়া ১৫ হাজারেরও বেশি গান রয়েছে আগের মতোই জীবন্ত।

১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর রাজশাহীতে জন্ম নিয়েছিলেন এন্ড্রু কিশোর। তিনি তিন দশকেরও বেশি সময় গান গেয়ে একাই রাজত্ব করেছেন বাংলা সিনেমায়। শারীরিক অসুস্থতার জন্য ২০১৯ সালের ৯ সেপ্টেম্বর তাঁকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। সিঙ্গাপুরে যাওয়ার পর ১৮ সেপ্টেম্বর এন্ড্রু কিশোরের শরীরে ধরা পড়ে ক্যান্সার।

টানা কয়েকমাস চিকিৎসার পর চিকিৎসকরা হাল ছেড়ে দিলে এন্ড্রু কিশোরের ইচ্ছাতেই গত বছরের (২০২০) জুলাই মাসে তাঁকে দেশে আনা হয়। তাঁকে ২০ জুলাই রাজশাহী নগরীর মহিষবাথানে বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাসায় নেয়া হয়। এরপর ৬ জুলাই সন্ধ্যায় তিনি মারা যান। ১৫ জুলাই রাজশাহী সার্কিট হাউস সংলগ্ন এলাকায় খ্রিষ্টানদের কবরস্থানে সমাহিত করা হয় তাঁকে।

প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে আজ মঙ্গলবার (৬ জুলাই) বিকালে পরিবারের পক্ষ থেকে প্রার্থনার আয়োজন করা হবে। এর আগে বিকাল ৪টায় রাজশাহী সিটি চার্চেও প্রার্থনা করা হবে। করোনা মহামারিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুবই স্বল্প পরিসরে এসব আয়োজন হবে। এতে এন্ড্রু কিশোরের পরিবারের সদস্য এবং হাতেগোনা কয়েকজন ঘনিষ্ঠজন অংশগ্রহণ করবেন।

এছাড়া এন্ড্রু কিশোরের প্রতিষ্ঠিত ওস্তাদ আব্দুল আজিজ বাচ্চু স্মৃতি সংসদ মঙ্গলবার (৬ জুলাই) অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করবে। রাতে ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে একটি স্মরণসভা।

Explore More Districts